শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ‘উগ্রবাদ বিরোধী রচনা’ আহবান করছে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট

স্টাফ রিপোর্টার / লিগ্যাল ভয়েস টোয়েন্টিফোর :

শিক্ষার্থীদের মধ্যে সহিংস উগ্রবাদ বিরোধী সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের নিকট থেকে তিনটি ক্যাটাগরিতে রচনা প্রতিযোগিতার জন্য রচনা আহবান করছে ডিএমপির কাউন্টার টেরোরিজম এন্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট (সিটিটিসি)।

তিনটি ক্যাটাগরির মধ্যে ক গ্রুপে (কলেজ) একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণীর জন্য রচনার বিষয়বস্তু থাকবে ‘সহিংস উগ্রবাদের বিস্তার রোধে বাঙালি সংস্কৃতির লালন ও সুকুমার বৃত্তির চর্চার প্রয়োজনীয়তা’ লেখাটি হতে হবে ৪৫০০-৫০০০ শব্দের মধ্যে। খ গ্রুপে (মাদ্রাসা) ন্যূনতম অষ্টম শ্রেণীর জন্য রচনার বিষয়বস্তু থাকবে ‘প্রকৃত ধর্মীয় শিক্ষা উগ্রবাদী চেতনার পরিপন্থী’ লেখাটি হতে হবে ৪৫০০-৫০০০ শব্দের মধ্যে। ক্যাটাগরির গ গ্রুপে (স্কুল) অষ্টম, নবম ও দশম শ্রেণীর জন্য রচনার বিষয়বস্তু থাকবে ‘সহিংস উগ্রবাদ প্রতিরোধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের ভূমিকা’ লেখাটি হতে হবে ৩৫০০-৪০০০ শব্দের মধ্যে।

রচনা পাঠানোর শেষ তারিখঃ ০৫/০৪/২০২১ খ্রিঃ, বিকাল ১৭.০০ টা। রচনা পাঠানোর ঠিকানা-

প্রকল্প পরিচালক,                                        বাংলাদেশ পুলিশের সন্ত্রাস দমন ও আন্তর্জাতিক অপরাধ প্রতিরোধ কেন্দ্র নির্মান প্রকল্প, কক্ষ নং ৪০৭, কাউন্টার টেরোরিজম এন্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট ভবন, ৩৬ মিন্টো রোড, ঢাকা।

এছাড়াও ইমেইল করতে পারেন dcrnd.ct@dmp.gov.bd এই ঠিকানায়।

রচনা প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের জন্য পুরস্কার হিসেবে থাকবে ১ম পুরস্কার ৫০ হাজার টাকা, ২য় পুরস্কার ৩০ হাজার টাকা ও ৩য় পুরস্কার ২০ হাজার টাকা।

রচনা প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের ক্ষেত্রে যেসব নিয়মাবলী অনুসরণ করতে হবে।

১। রচনা বাংলা ভাষায় লিখতে হবে। তবে উদ্ধৃতির ক্ষেত্রে বিদেশী ভাষার ব্যবহার হতে পারে। সে ক্ষেত্রে উদ্ধৃতির বাংলা অনুবাদ থাকতে হবে।

২। A4 সাইজের সাদা কাগজে নিজ হাতে লিখে অথবা এমএস ওয়ার্ডে কম্পিউটার কম্পোজ (SutonnyMj ফ্রন্ট) করে পাঠাতে হবে ( উভয় পৃষ্ঠায় নয়)।

৩। লেখার সাথে নিজের ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নাম, শ্রেণী/বিভাগ, রোল, বর্ষ, শাখা এবং মোবাইল নম্বর (যোগাযোগের জন্য) উল্লেখ করতে হবে।

৪। প্রতিযোগিদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রদত্ত শিক্ষার্থীর পরিচয়পত্রের ফটোকপি ও পাসপোর্ট সাইজের ০২ (দুই) কপি ছবি পাঠাতে হবে।

৫। প্রতিযোগিকে রচনার সাথে এই মর্মে অঙ্গীকার দাখিল করতে হবে যে, এই রচনা লেখকের নিজস্ব, রচনাটি অন্য কোন রচনা বা রচনার বাক্যবিশেষ অবিকল নয় বা হুবহু অনুবাদ নয়। উল্লেখ্য যে, অঙ্গীকার দাখিল করা সত্ত্বেও যদি কর্তৃপক্ষের নিকট নির্ভরযোগ্য সূত্রে প্রমাণিত হয় যে, রচনাটি নকল বা অনুবাদ তাহলে তা বাতিল বলে গণ্য হবে।

৬। পুরস্কারপ্রাপ্ত রচনাসমূহের সর্বস্বত্ত্ব কাউন্টার টেরোরিজম এন্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের জন্য সংরক্ষিত থাকবে। কাউন্টার টেরোরিজম এন্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট প্রয়োজনে নির্বাচিত রচনাসমূহ বা সকল রচনা নিজস্ব ওয়েবসাইট বা বই আকারে প্রকাশ করতে পারবে।

৭। রচনা ডাকযোগে বা কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে বা ইমেইলে পাঠাতে হবে। হাতে হাতে বা সরাসরি কোন রচনা গ্রহণযোগ্য হবে না।

৮। খামের উপর ‘‘উগ্রবাদ বিরোধী রচনা প্রতিযোগিতা’’ লিখতে হবে।

৯। বিচারকদের রায় চূড়ান্ত বলে গণ্য হবে।

বাংলাদেশ পুলিশের সন্ত্রাস দমন ও আন্তর্জাতিক অপরাধ প্রতিরোধ কেন্দ্র নির্মান প্রকল্পের আওতায় ২০২০-২০২১ অর্থবছরে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম এন্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট এই রচনা প্রতিযোগিতাটি আয়োজন করেছে। সূত্র: ডিএমপি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *