পাকিস্তানী তিন শাসকের ডিগ্রি বাতিলের উদ্যোগ ঢাবির

স্টাফ রিপোর্টার / লিগ্যাল ভয়েস টোয়েন্টিফোর :

পাকিস্তানী তিন শাসককে দেয়া সম্মানসূচক ডক্টরেট ডিগ্রি বাতিলের উদ্যোগ নিতে যাচ্ছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) প্রশাসন। বিষয়টি নিয়ে ডিনদেরকে যুক্তি-প্রমাণ দাঁড় করাতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি বিষয়টি নিয়ে রাষ্ট্রীয়ভাবেও পরামর্শ করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সবকিছু চূড়ান্ত করার পর মুজিববর্ষ ও ঢাবির শতবর্ষে আসতে পারে এই বিষয়ে যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত।

আজ রবিবার (১৮ অক্টোবর) বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনের সেমিনার কক্ষে আয়োজিত ডিনস কমিটির বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিনস কমিটির একাধিক সদস্য দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বৈঠকে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ, উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল এতে উপস্থিত ছিলেন।

পাকিস্তানের এই তিন শাসক হলেন, খাজা নাজিমুদ্দিন, ইস্কান্দার মির্জা এবং আইয়ুব খান। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় তার শতবর্ষে ৫২টি সমাবর্তনের মাধ্যমে সম্মানসূচক ডক্টরেট ডিগ্রী দিয়েছে মোট ৫২ জনকে। এদের মধ্যে খাজা নাজিমুদ্দিনকে ১৯৪২ সালে, ইস্কান্দার মির্জাকে ১৯৫৬ সালে এবং আইয়ুব খানকে ১৯৬০ সালে ডক্টর অব লজ ডিগ্রি প্রদান করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

ডিনস কমিটির বৈঠকের বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনোলজি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মো. হাসানুজ্জামান দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে বলেন, এই তিনজনের ডিগ্রি বাতিলের বিষয়টি আলোচনা করা হয়েছে। তবে বাতিলের ক্ষেত্রে ‘র‌্যাশনালিটি’ (যৌক্তিকতা) দাঁড় করাতে বলা হয়েছে। পাকিস্তানের সাথে যুদ্ধ করেছে শুধু এই জন্যে ডিগ্রি বাতিল, নাকি অন্য কোনো বিশেষ কারণ আছে সে বিষয়ে যুক্তি-প্রমাণ দাঁড় করানোর কথা বলা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, ডিনস কমিটির পাশাপাশি এটার সাথে যেহেতু রাষ্ট্রীয় ব্যাপার জড়িত তাই রাষ্ট্রীয়ভাবেও পরামর্শ করতে বলা হয়েছে।

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, র‌্যাশনালিটি কি সে ব্যাপারে এভিডেন্সগুলো দেখতে হবে। তাই কমিটির সদস্যদের আমরা ডকুমেন্টসগুলা সংগ্রহ করতে বলেছি।

এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে এই তিন শাসকের ডিগ্রি বাতিলের দাবি ওঠে। সাম্প্রতিক সময়ে তারা মানববন্ধন, সংবাদ সম্মেলন ও প্রতিবাদ সমাবেশের মতো বেশকিছু কর্মসূচিও পালন করেছেন।

তাদের মতে, শতবর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে আমরা কলঙ্কমুক্ত দেখতে চাই। এজন্য পাকিস্তানি দোসর কুখ্যাত খাজা নাজিমুদ্দিন, ইস্কান্দার মির্জা ও আইয়ুব খানকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক দেয়া ডক্টর অব লজ ডিগ্রী বাতিল করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *