ভিসা ও আকামার মেয়াদ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সৌদি কর্তৃপক্ষ

কূটনীতিক রিপোর্টার / লিগ্যাল ভয়েস টোয়েন্টিফোর :

বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন জানিয়েছেন সৌদি আরব থেকে ছুটি কাটাতে আসা বাংলাদেশিদের ভিসা এবং আকামার মেয়াদ বাড়ানোর কথা আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশকে জানিয়েছে।

তিনি বিবিসি বাংলাকে জানান সৌদি কর্তৃপক্ষ বাংলাদেশ বিমানের সব ফ্লাইটকে অবতরণ করতে দেবে।

একই সাথে বাংলাদেশও সৌদি এয়ারলাইন্সের সব ফ্লাইট অবতরণ করতে দেবে বলে আজই এক আন্ত:মন্ত্রণালয় সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছে।

সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে কাজে ফেরত যাওয়ার জন্য বিমানের টিকেট না পাওয়া এবং ৩০শে সেপ্টেম্বরের মধ্যে তাদের অনেকে ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার আশঙ্কা ছিলো।

এখন পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলছেন সৌদি কর্তৃপক্ষ এ সব বিষয়েও সরকারকে ইতিবাচক জবাব দিয়েছে।

“রোববার থেকেই তারা ভিসা এক্সটেনশন করে দেবে। আর চলতি মাসের (আরবী মাসে) আরও চব্বিশ দিন বাকী আছে তাই এসময়ের জন্য আকামার মেয়াদও তারা বাড়াবে। এটা আমাদের জন্য খুবই ভালো সংবাদ, ” বলছেন মিস্টার মোমেন।

এরআগে সকালে ঢাকায় এক সংবাদ সম্মেলনে প্রবাসী কল্যাণ ও কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ বলেছিলেন বাংলাদেশের পক্ষ থেকে ভিসার মেয়াদ তিন মাস বাড়ানোর জন্য সৌদি আরব সরকারকে চিঠি দেয়া হয়েছে। কিন্তু সৌদি আরবে সরকারি ছুটি থাকায় সিদ্ধান্তের জন্য রোববার পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

গত দু’দিন ধরে প্রবাসীদের অনেকে কর্মক্ষেত্রে যাওয়ার জন্য বিমানের টিকেট এবং ভিসার মেয়াদ বাড়ানোর দাবিতে ঢাকায় বিক্ষোভ করছিলেন।

সেই প্রেক্ষাপটে প্রবাসী কল্যাণ এবং পররাষ্ট্র সহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়গুলোর একটি বৈঠক আজ অনুষ্ঠিত হয়।

আন্ত:মন্ত্রণালয়ের এই বৈঠকের পর প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী সংবাদ সম্মেলনে তাদের বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা তুলে ধরেন।

সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্র মন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বলেছিলেন, এ ধরণের বিক্ষোভ বা আন্দোলন করলে সৌদি আরবের কাছে ভুল বার্তা যাবে।

সৌদি আরব থেকে ছুটিতে দেশে এসে যারা আটকা পড়েছেন, তাদের অনেকে আজ প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কাছে এবং কারওয়ান বাজার এলাকায় বিক্ষোভ করেছেন।

বিক্ষোভকারীরা সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে কাজে ফেরত যাওয়ার জন্য বিমানের টিকেট না পাওয়া এবং ৩০শে সেপ্টেম্বরের মধ্যে তাদের অনেকে ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার ব্যাপারে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *