নারী চিকিৎসককে আদালতে যাওয়ার পরামর্শ বিচারপতির

হাইকোর্ট রিপোর্টার / লিগ্যাল ভয়েস টোয়েন্টিফোর :

করোনার ঊর্ধ্বমুখী প্রভাব কমাতে চলমান লকডাউনের মধ্যে মুভমেন্ট পাস নিয়ে চিকিৎসক-পুলিশ ও ম্যাজিস্ট্রেটের বাগবিতণ্ডার ঘটনাটি এক আইনজীবী হাইকোর্টের নজরে নিয়ে আসেন। তখন আদালত ওই আইনজীবীকে পাল্টা প্রশ্ন করেন, আপনি কে? আদালতে আসতে চাইলে সংক্ষুব্ধ ব্যক্তিকে আসতে হবে। যদি আসতে হয়, উনি (ডাক্তার) আসবেন। তখন দেখা যাবে।

সোমবার (১৯ এপ্রিল) বিষয়টি হাইকোর্টের নজরে আনা আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দ গণমাধ্যমকে বিষয়টি জানিয়েছেন। তিনি বলেন, গতকালের ওই ঘটনা আদালতে উত্থাপন করা হলে হাইকোর্টের বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চুয়াল বেঞ্চ এমন মন্তব্য করেন।

আদালত বলেছেন, পুলিশ-চিকিৎসক বাগবিতণ্ডা করেছেন। তাদের কাউকে আদালতে আসতে হবে। তখন বিষয়টি দেখা যাবে।

অ্যাডভোকেট ইউনুছ আলী আকন্দ আদালতকে বলেন, গতকাল (১৮ এপ্রিল) একজন চিকিৎসককে পুলিশ হয়রানি করেছে। আমি জনস্বার্থে এই ঘটনাটি আপনাদের কাছে উপস্থাপন করছি। একজন নারী চিকিৎসককে রাস্তায় হেনস্তা করা হয়েছে- এ বিষয়ে হাইকোর্টের নির্দেশনা চাচ্ছি। তখন আদালত বলেন, পুলিশ-চিকিৎসক ও ম্যাজিস্ট্রেট রাস্তায় বাগবিতণ্ডা করেছেন। তাকেই (ডাক্তার) আদালতে আসতে হবে। তখন বিষয়টি দেখা যাবে।’

তিনি বলেন, লকডাউনে মুভমেন্ট পাস নিয়ে চিকিৎসক-পুলিশ ও ম্যাজিস্ট্রেটের বাগবিতণ্ডার ঘটনায় ডাক্তারকে হেনস্থা করা হয়েছে এমন ঘটনা নিয়ে দেশের বিভিন্ন গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়েছে। এর মধ্যে আজ তিনটি আলাদা পত্রিকা আদালতে উপস্থাপন করেছিলাম। আমি জনস্বার্থে এই ঘটনা আপনাদের (আদালতের) কাছে উপস্থাপন করছি।

পরে হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট বেঞ্চ বলেন, যেহেতু বিষয়টি ডাক্তার নিজেই চ্যালেঞ্জ করেছেন। আদালতে আসতে চাইলে সংক্ষুব্ধ ব্যক্তিকে আসতে হবে। যদি আসতে হয়, উনি (ডাক্তার) আসবেন। তখন দেখা যাবে।

প্রসঙ্গত, রোববার (১৮ এপ্রিল) রাজধানীর এলিফ্যান্ট রোডে লকডাউনের পঞ্চম দিনে ‘মুভমেন্ট পাস’ নিয়ে বাগবিতণ্ডায় জড়ান এক নারী চিকিৎসক, ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশ কর্মকর্তা। তিনপক্ষের বাগবিতণ্ডার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। এতে বিভিন্ন গণমাধ্যমসহ অনেককে নানা পর্যবেক্ষণ ও মন্তব্য করতে দেখা গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *