বাফুফে নির্বাচন: প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে সব পদে

স্পোর্টস ডেস্ক / লিগ্যাল ভয়েস টোয়েন্টিফোর :

ঢাকা, বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সব পদেই প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে বলে ধারনা করা হচ্ছে। কারণ আজ শেষ দিনে সভাপতি, সিনিয়র সহ-সভাপতি এবং সহসভাপতি পদে কোন প্রার্থী নিজের মনোনয়র পত্র প্রত্যাহার করেননি।

আজ ছিল মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন। শেষ সময় ছিল বিকেল ৫টা। এই সময়ের মধ্যে শুধুমাত্র সদস্য পদের দুইজন প্রার্থী তাদের মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহার করেছেন। এরা হলেন উত্তর বারিধারা ক্লাবের জাকির হোসেন বাবুল এবং আজমপুর ফুটবল ক্লাবের সাইদুর রহমান মানিক।
দুইজন প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহারের ফলে এখন নির্বাচনের প্রর্থী সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪৭জনে। এদের মধ্যে সভাপতি পদে তিনজন, সিনিয়র সহ-সভাপতির পদের জন্য দুইজন, চারটি সহ-সভাপতি পদের জন্য আটজন এবং ১৫টি সদস্য পদের বিপরীতে প্রার্থী হয়েছেন ৩৪জন।

আগামীকাল রোববার বিকেল তিনটায় চুড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করবে নির্বাচন কমিশন। আসন্ন এই নির্বাচনটি একপেশে হবে বলে ধারানা করা হলেও এখন পাল্টে গেছে দৃশ্যপট। আগামী ৩ অক্টোবরের বাফুফে নির্বাচনে ২১ পদের বিপরীতে প্রার্থী হয়েছেন ৪৭জন।
সভাপতি পদের জন্য মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন বর্তমান সভাপতি কাজী মো: সালাহউদ্দিন, বর্তমান সহ-সভাপতি বাদল রায় ও সাবেক ফুটবলার ও কোচ শফিকুল ইসলাম মানিক।
সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে বাফুফের বর্তমান সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুস সালাম মুর্শেদী, এমপির বিপক্ষে প্রার্থী হয়েছেন বর্তমান কমিটির সদস্য শেখ মোঃ আসলাম। সালাহউদ্দিনের নেতৃত্বাধীন প্যানেলের প্রার্থী হয়েছেন মুর্শেদী।
২১ সদস্যের কার্য্যনির্বাহী কমিটির ১৫জন এবার সালাউদ্দিনের প্যানেল থেকে নির্বাচন করছেন। আর বাকী ছয়জন নতুন মুখ। সহসভাপতি পদে আগের কমিটি থেকে সালাহউদ্দিনের প্যানেলে শুধুমাত্র কাজী নাবিল আহমেদ এমপি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। সেখানে ঠাই পাননি বাকী তিন সহ-সভাপতি বাদল রায়, মহিউদ্দিন মহি ও তাবিথ আওয়াল।
প্রমোশন পেয়ে সালাহউদ্দিনের প্যানেল থেকে সহ-সভাপতি প্রার্থী হয়েছেন আমিরুল ইসলাম বাবু, বাকী দুইজন নতুন মুখ হচ্ছেন বসুন্ধরা কিংস এর সভাপতি ইমরুল হাসান ও তমা গ্রুপের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান মানিক।

বর্তমান সহ-সভাপতি তাবিথ আওয়াল আগের মতই স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ওই পদে নির্বাচন করছেন। সালাহউদ্দিনের প্যানেল থেকে সদস্য হিসেবে নির্বাচন করতে যাচ্ছে চার নতুন মুখ। এরা হচ্ছেন আসাদুজ্জামান মিঠু (যশোর), কামরুল হাসান হিল্টন (সিরাজগঞ্জ), সৈয়দ রিয়াজুল করিম (ফকিরের পুল ইয়ংমেন্স ক্লাব) ও ইমতিয়াজ হামিদ সবুজ (রহমতগঞ্জ এমএফএস)। বাকীরা বর্তমান কমিটিরই সদস্য।
সালাহউদ্দিনের প্যানেল:
সভাপতি : কাজী মো: সালাহউদ্দিন, সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুস সালাম মুর্শেদী, এমপি।
সহ-সভাপতি: কাজী নাবিল আহমেদ এমপি , আমিরুল ইসলাম বাবু, ইমরুল হাসান ও আতাউর রহমান মানিক।
সদস্য: মোঃ মিজানুর রহমান, মোঃ ফজলুর রহমান বাবুল, মোঃ হাসানুজ্জামান খান, জাকির হােসেন বাবুল, মোঃ রায়হান কবির, মোঃ সাইফুর রহমান মনি, হারুনুর রশীদ, মাহফুজা আক্তার (কিরন), সত্যজিৎ দাশ রূপু, মোঃ ইলিয়াছ হোসেন, বিজন বড়–ুয়া, মোঃ ইকবাল হোসেন,অমিত খান শুভ্র , মহিউদ্দিন আহমদ সেলিম, জাকির হোসেন চৌধুরী, সৈয়দ রিয়াজুল করিম, কামরুল হাসান হিলটন, ইমতিয়াজ হামিদ সবুজ, মোঃ আসাদুজ্জামান মিঠু, মোঃ নুরুল ইসলাম (নুরু), শাকিল মাহমুদ চৌধুরী, সাইদুর রহমান মানিক।
আগামী ৩ অক্টোবরের নির্বাচনে ২১ সদস্য বিশিষ্ট কার্যনির্বাহী কমিটির জন্য ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন ১৩৯জন ডেলিগেট।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *