দাফনের সময় শিশুর নড়ে ওঠা দৈব ঘটনা: ঢামেক পরিচালক

নাসরীন আক্তার / লিগ্যাল ভয়েস টোয়েন্টিফোর :

জীবিত শিশুর মৃত্যুসনদ দেয়ার ঘটনায় ডাক্তারদের গাফিলতি নয়, ব্যর্থতা থাকতে পারে বলে প্রতিবেদন দিয়েছে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল গঠিত তদন্ত কমিটি।

মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) দুপুরে হাসপাতাল পরিচালক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, দাফনের সময় শিশুটির নড়ে ওঠার বিষয়টি একটি দৈব ঘটনা। দোষীদের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নিতে তদন্ত কমিটি সুপারিশ করেছে বলেও জানান তিনি।

দাফনের সময় সদ্যজাত মরিয়মের জীবিত ফিরে আসার ঘটনা চমকে দিয়েছে চিকিৎসকদেরও। গণমাধ্যমে সংবাদ প্রচারের পর এ ঘটনা তদন্তে ১৬ অক্টোবর গঠন করা হয় ৪ সদস্যের কমিটি। তাদের তদন্ত নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে হাসপাতাল পরিচালক এ কে এম নাসির উদ্দিন চিকিৎসকদের গাফিলতি না দেখলেও ব্যর্থতা ছিল বলে জানান।

ঢাকা মেডিকেল কলেজের (ডিএমসি) এ কে এম নাসির উদ্দিন বলেন, এখানে চিকিৎসকদের ব্যর্থতা ছিল। তা না হলে শিশুটা জীবিত ছিল। এবং আমাদের কাছে ফিরে এসেছে; জীবিত রয়েছে। তবে চিকিৎসকদের আন্তরিকতা ছিল না।

শিশুটি এখনও সংকটাপন্ন জানিয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছে, বাবা-মার কোলে শিশুটিকে ফেরাতে চিকিৎসকরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করা হচ্ছে।
গত শুক্রবার ভোরে ঢাকা মেডিকেলে জন্ম নেয় শাহিনুর-ইয়াসিন দম্পতির কন্যা মরিয়ম। নির্দিষ্ট সময়ের আগে জন্ম নেয়া শিশুটিকে মৃত্যুসনদ দেয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এরপর বিআরটিসি বাস চালক বাবা ইয়াসিন রায়েরবাজার কবরস্থানে দাফনের জন্য কবরে নামাতে গেলে নড়ে ওঠে মরিয়ম। এরপর আবারো ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে আসা হয় তাকে। শিশুটি এখন আশঙ্কাজনক অবস্থায় আইসিইউতে ভর্তি রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *