চীন নাকি রাশিয়া- কাকে বেশি ভয় পায় যুক্তরাষ্ট্র?

আন্তর্জাতিক ডেস্ক / লিগ্যাল ভয়েস টোয়েন্টিফোর :

নিরাপত্তা বিষয়ক বিবিসির সংবাদদাতা গর্ডন করেরা বলছেন, ২০১৬ সালের নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপের ব্যাপারে খুব আস্তে ধীরে কাজ করেছিল যুক্তরাষ্ট্রের সরকারসহ সোশাল মিডিয়া কোম্পানিগুলো।

কিন্তু গত চার বছরে পরিস্থিতি বদলে গেছে এবং এবার আর কেউ চুপ করে বসে নেই।

তিনি বলেন, এবার কোম্পানিগুলো এবিষয়ে অনেক বেশি সোচ্চার এবং যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা বাহিনীগুলোও নিয়মিত তাদের পর্যালোচনা প্রকাশ করছে।

তবে এটাও ঠিক যে এই বিষয়টি নিয়ে রাজনীতিও হচ্ছে।

“ডেমোক্র্যাটরা মনে করেন ডোনাল্ড ট্রাম্পকে সহযোগিতা করার জন্য রাশিয়া হস্তক্ষেপের চেষ্টা করছে, কিন্তু মি. ট্রাম্পের সমর্থকরা মনে করছেন তিনি যাতে পুনরায় নির্বাচিত হতে না পারেন সেজন্য এবার চেষ্টা করছে চীন।”

গর্ডন করেরা বলেন, নিরাপত্তা বিষয়ক কর্মকর্তারা এই দুটো অবস্থানের মাঝখান দিয়ে চলার চেষ্টা করছেন। তারা স্বীকার করছেন যে দুটো ঘটনাই ঘটছে। চীন ও রাশিয়ার ভূমিকার মধ্যে পার্থক্যের বিষয়ে মুখ খুলতে তারা রাজি নন। কারণ সেরকম কিছু হলে তাদের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ উঠতে পারে।

“রাশিয়ার হস্তক্ষেপ অনেক সংগঠিত এবং গোপন, তবে এটা এখনও ২০১৬ সালে ডেমোক্র্যাটদের ইমেইল হ্যাক করার পর্যায়ে গিয়ে পৌঁছায়নি,” বলেন তিনি।

তার মতে সময়ের সাথে সাথে এসব দেশের কৌশলেও পরিবর্তন ঘটেছে। তবে নির্বাচনের সময় যতো ঘনিয়ে আসবে এধরনের অভিযোগের কথা ততো বেশি শোনা যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *