আইফোন ছিনতাইয়ের অভিযোগে ঢাবি শিক্ষার্থী আটক

ক্যাম্পাস প্রতিনিধি/লিগ্যাল ভয়েস টোয়েন্টিফোরঃ

ছিনতাইয়ের অভিযোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের লোকপ্রশাসন বিভাগের শিক্ষার্থী আকরামুল কবির আকরামকে আটক করেছে পুলিশ। সে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হল শাখা ছাত্রলীগের কর্মী বলে জানা গেছে।

রোববার (২১ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে ছিনতাইয়ের অভিযোগে আকরামকে পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মামুন অর রশিদ।

জানা যায়, শহীদ দিবসে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ঘুরতে আসে কলেজ পড়ুয়া কয়েকজন শিক্ষার্থী। আকরাম ও তার সহযোগীরা মিলে এসকল শিক্ষার্থীদের ভয়ভীতি দেখিয়ে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের গেইটের সামনে থেকে উদ্যানের ভেতরে অবস্থিত মুক্তমঞ্চে ডেকে নিয়ে যায়। তারপর তাদের কাছে গাঁজা পাওয়া যাওয়ার মিথ্যে অভিযোগ করে ভয়ভীতি দেখিয়ে তাদের কাছে থাকা মোবাইল ও টাকা জোর করে ছিনিয়ে নেয়। না দিতে চাইলে তাদের মাদক দিয়ে পুলিশে দেওয়ার ভয়ভীতি দেখায়।

ছিনতাইয়ের শিকার বি এফ শাহীন কলেজের ১ম বর্ষের শিক্ষার্থী সিয়াম বিন হাসান বলেন, ‘আমাদের বলা হয় মোবাইল-টাকা না দিলে পকেটে মাদক দিয়ে আমাদের পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হবে। এই বলে আমাদের কাছে থাকা চারটি মোবাইল ও কিছু টাকা নিয়ে যায় তারা। তারপর আমরা অনেক অনুরোধ করলে তিনটি মোবাইল ফেরত দিলেও একটি আইফোন ও টাকা তারা রেখে দেয়।’

অভিযোগের বিষয়ে তাৎক্ষণিক জিজ্ঞাসাবাদে আকরামের তিন সহযোগী ইয়ামিন সুলতান, হাসিবুল বাসার হাসিব ও সোহাইন হোসাইন তানভীর অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করলেও আকরামুল কবির আকরাম বিষয়টি অস্বীকার করেন। এই ঘটনার পরপরই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল টিমের সদস্যরা তাকে শাহবাগ থানা পুলিশের হাতে ‍তুলে দেয়।

আকরামের আরেক সহযোগী পলাশীর একটি ফাস্ট ফুড দোকানের কর্মচারী আল আমিন বলেন, ‘আকরাম এর আগেও বিভিন্ন সময় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের ভিতরে গাঁজা বিক্রেতাদের মারধর করে এবং পুলিশের কাছে ধরিয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে তাদের কাছ থেকে গাঁজা ছিনিয়ে নিত। এছাড়াও সে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ঘুরতে আসা লোকজনদের মারধর করে টাকা ছিনতাই করত।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মামুন অর রশিদ বলেন, ‘তাকে থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ ভিত্তিতে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *